Translate in Your Language

ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কেন শিখব? | Why to Learn Instagram Marketing? Bangla | Digital Marketing | Shemanto Sharkar

Instagram Marketing Bangla


 Hello Everyone!!

আশা করি সবাই ভাল আছেন। আমি সীমান্ত সরকার, একজন রিডার, ব্লগার এবং পডকাস্টার। আমি ইনস্টাগ্রামে স্টূডেন্টদের জন্য পেসিভ ইনকাম,ডিজিটাল মার্কেটিং এবং নন-ফিকশন বই নিয়ে কন্টেন্ট তৈরি করে থাকি।

আজকের ব্লগের টপিক হচ্ছে, “ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কেন শিখব?” । যাতে আমি এক্সপ্লেইন করার চেষ্টা করবো ---কেন আপনার ইনস্টাগ্রম মারকেটিং শেখা উচিত
---বিশেষ করে বাংলাদেশিদের জন্য ইনস্টাগ্রাম কেন গুরুত্বপূর্ণ।
---যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রতি আপনার আগ্রহ থাকে তবে নতুন হিসেবে কেন আপনার ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং দিয়ে শুরু করা উচিত আর
---নতুন কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্য কি কি অপরচুনিটি ইনস্টাগ্রামে রয়েছে

এই চারটা প্রশ্নের উত্তর নিয়ে ডিটেলস আলোচনা থাকবে আজকের ব্লগে। তাহলে চলুন শুরু করা যাক


প্রথমই আসি ইনস্টাগ্রম মার্কেটিং কি?

আপনি হয়তো প্রায়ই “ডিজিটাল মার্কেটিং”  টার্মটার শুনে থাকেন। ডিজিটাল দুনিয়া বা ইন্টারনেটকে কাজে লাগিয়ে  কোন পণ্য বা সার্ভিস বা ভ্যালু বিক্রির চেষ্টা বা মার্কেটিং করাকে সহজ ভাষায় ডিজিটাল মার্কেটিং বলে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটা সাব-সেক্টর হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। যার মাঝে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউব ইত্যাদি সোশ্যাল সাইট গুলো পড়ে। এখন আপনার ব্যবহার করা কোনো পণ্য বা সার্ভিস বা কোন স্কিল যেটা আপনি পারেন তা ইনস্টাগ্রামের  মাধ্যমে বিক্রি করা অথবা কাস্টমারের কাছে পৌঁছে দেয়াই ইনস্টাগ্রম মারকেটিং।

এখন আপনার ভ্যালুটুকু কাস্টমারের কাছে পৌঁছে দিতে হলে ইন্সটাগ্রামের বিভিন্ন টুলস আর টেকনিক আছে যেগুলো ব্যবহার করে ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল গ্রো করা বা কোন এড ক্যাম্পেইন রান করা যায় এবং টার্গেটেট অডিয়েন্সের কাছে বেশি সংখ্যায় রিচ করা যায়। আর এই টুলস আর টেকনিক গুলো শেখাযই ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং মূল মেকানিজম।

----এখন কেন আপনার ইনস্টাগ্রম মারকেটিং শেখা উচিত?
নাম্বার ওয়ান রিজন- মার্কেটিং স্ট্রাটেজি এন্ড পপুলারিটিঃ

ইনস্টাগ্রাম visual content এর উপর ভিত্তি করে তৈরি আর ইনস্টাগ্রাম পেজ কোন নির্দিষ্ট টপিক বা Niche এর উপর storytelling strategy  তৈরি করে অর্থাৎ কোন ব্যান্ডের গল্প তুলে ধরে ।
আর মার্কেটিংয়ের জন্য visual content, storytelling   দুটোই খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়।এটা কোনো ব্র্যান্ডকে প্রমোট করতে খুবই বেশি সাহায্য করে।

যেমন- আমার নিজের প্রোফাইল এর কথাই যদি বলি, ঠিক এক বছর আগে আমি আমার পাওয়ারপয়েন্ট আর গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজগুলো তুলে ধরার জন্য প্লাটফর্ম খুজছিলাম। আমি প্রথমে ফেসবুকপেজ,ইউটিউবে চেষ্টা করি কিন্তু তেমন কোনো একটা লাভ হয়নি। আমি যেহেতু টিউটোরিয়াল ভিডিও তৈরি করি না তাই ইউটিউবে একটা অবস্থান তৈরি করা বেশ কষ্টসাধ্য।

অন্যদিকে আমি যখন প্রথম পাওয়ারপয়েন্ট এর কাজ গুলো ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করি তখন বুঝতে পারি ইনস্টাগ্রাম ইন্টারফেস আমার গ্রাফিক্স রিলেটেড কাজগুলোর জন্য বেশ ভালো কাজ করবে আর কাজ করেওছিলো। ইন্সটাগ্রাম এর ইন্টারফেস   ম্যানেজ করা খুবই সহজ ,বিশেষ করে আমার মত যারা পড়াশোনার  পাশাপাশি  নিজের কাজগুলোতুলে ধরার জন্য চেষ্টা করছে তাদের জন্য ইনস্টাগ্রাম চমৎকার এক প্ল্যাটফর্ম।

এরপর আমি সিদ্ধান্ত নেই ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং এর খুঁটিনাটি বিষয়গুলো শেখার এবং ওইগুলো আমার পেইজে প্র্যাকটিক্যালি এপ্লাই করার। এক বছর ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং এর খুঁটিনাটি বিষয়গুলো এপ্লাই করার পর এই মুহূর্তে যখন আমি ব্লগটি লিখছি তখন অর্গানিক্যালি আমার প্রোফাইলে ২২০০(+ -) ফলোয়ার রয়েছে।

হ্যাঁ এটা হতো আহামরি কিছুনা কিন্তু আমার প্রোফাইলে এপ্লাই করা  টেকনিক গুলো ব্যবহার করে আমার আলাদা এফিলিয়েট মার্কেটিং আর ব্লগিং  এর মত অনলাইন বিজনেস শুরু করতে পেরেছি যা দিয়ে আমার এখন প্যাসিভ ইনকাম সোর্স তৈরি হয়ে গেছে।

তাছাড়া ইনস্টাগ্রাম মার্কেটার  বা সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হিসেবে  ফ্রীলান্সিং করার সুযোগ তো এখন রয়েছেই।

আমার এক বন্ধু শুধুমাত্র ইনস্টাগ্রাম ম্যানেজার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করে এবং এই মুহূর্তে তার পকেটে ইনকাম সম্পূর্ণটাই ইনস্টাগ্রাম থেকে আসে।

আমার কন্টাক্ট গুলো গ্রাফিক্স রিলেটেড আর সবগুলো ভিডিও কনটেন্টও না। তাই ইনস্টাগ্রামের মতো প্লাটফর্মে এগুলো ভালো কাজ করছিল । ইনস্টাগ্রামের প্রোফাইলে ম্যানেজ করা বেশ সহজ ,সব পোস্টগুলো এক জায়গায় থাকায় কোনো প্রোফাইলের পোস্টগুলো  উপরে থাকা দেখে যে কেউ বুঝে নিতে পারে কোনো ব্র্যান্ড বা কনটেন্ট ক্রিয়েটর কি নিয়ে কাজ করে অর্থাৎ প্রতিটি প্রোফাইলে কোন এক গল্প বলে।

সব মানুষেই গল্প পছন্দ করে। গল্প আমাদের মেমোরিতে ভালভাবে রেজিস্টার হয় সাধারণ কথাবার্তার চাইতে। আমি পাওয়ারপয়েন্ট এর কাজ গুলো আমার ইনস্টাগ্রামে দিতাম এবং বায়োতে এই রিলেটেট কথাগুলো লিখে রাখতাম। প্রোফাইলটা একবার দেখার পর সবাই বুঝে নিতে পারত আমি কি নিয়ে কাজ করি।
এখন যেহেতু আমি পডকাস্ট,ব্লগিং নিয়ে কাজ করা শুরু করেছি তাই কিছুদিন পর যখন এই রিলেটেড বেশ কিছু পোস্ট ইনস্টাগ্রামে করা হয়ে যাবে তখন সহজেই কেউ বুঝে নিতে পারবে আমি পডকাস্ট নিয়ে কাজ করছি এবং পোস্টগুলো দেখে সহজে তারা অনুমান করে নিতে পারবে আমার পডকাস্ট এর  টপিক কি।

আর  এই সবই ইনস্টাগ্রম মার্কেটিং এর প্রতি বিজনেস কোম্পানি গুলোর  এট্রাক্টেড হওয়ার কারণ।

আর মানুষের আগ্রহ যেখানে  আছে সেখানে অর্থও আছে।

ব্র্যান্ডগুলোর ইনস্টাগ্রম মারকেটিং পারে এমন মানুষ অবশ্যই  হায়ার করতে চাইবে আর আপনি যদি এ বিষয়ে দক্ষ হোন তবে ফুল টাইম জব, ফ্রিল্যান্সিং বা অন্য অনেক উপায় আছে এখান থেকে টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

এছাড়াও আপনি চাইলে আপনার নিজের কোন প্রোডাক্ট, সার্ভিস অফার করতে পারেন। এর বাইরে আপনার যদি কোন  স্কিল  থাকে, যেমন আমার ক্ষেত্রে  ছিল পাওয়ারপয়েন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন,  তাহলে আপনি চাইলে আপনার নিজের পার্সোনাল  ব্র্যান্ডিং শুরু করতে পারেন ইনস্টাগ্রামে। আর কেইবা জানে দেখা গেলো আপনি একজন ইনস্টাগ্রাম ইনফ্লুয়েন্সের হয়ে গেলেন। Who knows,right?

এবার আসি দ্বিতীয়  প্রশ্নে -বাংলাদেশের জন্য আলাদা করে ইনস্টাগ্রাম কেন গুরুত্বপূর্ণ?

যেকোনো নতুন প্লাটফর্ম যার পরিধি আস্তে আস্তে বড় হচ্ছে তা সুযোগসন্ধানীদের জন্য এক বড় অপরচুনিটি ।আপনি যদি পাঁচ বছর আগেকার কথা চিন্তা করেন যখন আস্তে আস্তে ইউটিউব,ইন্টারনেটের বিস্তার হচ্ছিল আর তখন যারা কষ্ট করে হলেও নিয়মিত ভিডিও তৈরি করে গেছেন তারা আজ সবার পরিচিত সফল ইউটিউবার।

বাংলাদেশের যে কোন সার্ভিস ইন্ডিয়াতে পপুলার হওয়ার তিন থেকে চার বছর পর বাংলাদেশ পরিচিত হয় আর তারও কয়েকবছর পর তা পপুলার হওয়া শুরু করে। যেমনটা এখন পডকাস্ট ক্ষেত্রে বলা হচ্ছে।

ঠিক তেমনি ইনস্টাগ্রামও বাংলাদেশে আস্তে আস্তে পপুলার হচ্ছে আর এজন্য এর মাঠ এখনও অনেকটাই ফাঁকা আর যার জন্য  নতুন কনটেন্ট  ক্রিয়েটররা এই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেন।

---গতবছর বাংলাদেশের প্রথম ইনস্টাগ্রম ইনফ্লুয়েন্সের হায়ারিং প্লাটফর্ম তৈরি হয়
--- ইন্ডিয়াতে Instagram Reel 1-2 বছর আগে চালু হলেও বাংলাদেশে এখনো আসেনি. তার মানে সামনে আসবে।
---ইনস্টাগ্রাম গতবছর ঘোষণা দেয় তাদের লং  ফর্ম ভিডিও  IG Tv কে তারা মনিটাইজ করবে ।আর এটা হলে  কন্টেন ক্রিয়েটররা ফেসবুক ইউটিউব এর মত ইনস্টাগ্রামেও ভিডিও বানিয়ে টাকা উপার্জন করতে পারবে।

এই সবগুলোই একটা অপারচুনিটি। তাই ভবিষ্যতে যারা কন্টেন্ট নিয়ে কাজ করবে তাদের জন্য ভালো হবে এখন থেকেই ইন্সটাগ্রাম এর প্রতি জোর দেয়া ।তাহলে দেখা যাবে ৩-৪ বছর পর যখন প্লাটফর্মটা পপুলার হয়ে যাবে তখন আপনি এগিয়ে থাকবেন বাকিদের চাইতে।

আর এই জন্য বাংলাদেশিদের জন্য আলাদা করে ইনস্টাগ্রাম বেশি গুরুত্বপূর্ণ । আর নতুন করে ক্রিয়েটররা  ঠিক এই  কারন গুলোর কথা চিন্তা করেই প্রথমেই ইনস্টাগ্রাম দিয়ে মার্কেটিং শেখা শুরু করতে পারেন। ইনস্টাগ্রামে প্রোফাইল ম্যানেজ করো অনেকটাই সহজ ,যে কেউ চাইলেই কোন টপিকের উপর প্রোফাইল তৈরি করে  প্র্যাকটিক্যালি ইনস্টাগ্রম মারকেটিং শিখে নিতে পারেন আর আস্তে আস্তে ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্য সেক্টর গুলোতেও দক্ষ হয়ে যেতে পারেন। এতে করে আপনার প্রেক্টিক্যাল নলেজ তৈরি হবে আর শেখাটাও হবে অনেক বেশি সহজ।

সত্যি বলতে ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর কিন্তু এতক্ষণে আপনি  পেয়ে গেছেন যে নতুন কন্টেনন্ট ক্রিয়েটরা কি কি অপুরচুনিটি পাবে ইন্টাগ্রামে।

তবে মাথায় রাখবেন ইনস্টাগ্রামে ছবিতেই কাজ চলে এমনটা ভেবে আপনার নিজের বিভিন্ন পোজে তোলা ছবি দিয়ে ইনস্টাগ্রামে ইনফ্লুয়েন্সার হওয়া ব্যর্থ স্বপ্ন দেখবেন না,এতে আপনার সময় নষ্ট হওয়া ছাড়া কিছুই হবে না। বিজনেজ মডেল বা নির্দিষ্ট লক্ষ্য ছাড়া সোসিয়াল মিডিয়ার হাজার হাজার লাইকে কিছুই যায় আসে না। আপনি চাইলেও ঐ লাইক দিয়ে একটা সিংগারাও কিনে খেতে পারবেন না।তাই লোভে পরে বা আবেগী হয়ে লাইক,কমেন্ট,ফলোয়ারের পেছনে ছুটবেন না।

মানুষ  চায় তাদের জীবনে কাজে লাগবে এমন জিনিস গুলো ফলো করতে আর সত্যি বলতে একজন মানুষের কাজে লাগে বা তার সাহায্য হয় এমন কনটেন্ট তৈরি করাই উচিত। এতে আপনার সংখ্যায় অল্প কিন্তু স্টং ফলোয়ার কমিউনিটি তৈরি হবে। আর তখন আপনি আপনার সার্ভিস প্রোভাইট করে টাকা পেতে পারেন।

ইনস্টাগ্রামের কিভাবে নিজেকে ইনস্টাগ্রামের ব্র্যান্ডিং করতে হয় তার স্টেপ বাই স্টেপ প্রসেস থাকবে আমার পরবর্তী এপিসোডগুলোতে/ব্লগগুলোতে।

সবাইকে ধন্যবাদ এই পর্যন্ত যারা আমার  ব্লগটি পড়েছেন।

আপনি চাইলে আমাকে ইনস্টাগ্রামে  ফলো করতে পারেন। আমি নিয়মিত ওই ধরনের পোস্টগুলো করি যা আপনাকে ডেইলি ১% বেটার হতে সাহায্য করে আর আমার উইকলি নিউজলেটারে সাবস্ক্রাইব করতে ভুলবেন না।আমার পড়া নন-ফিকশন বইয়ের বিশেষ অংশগুলো সপ্তাহের শেষে আপনার মেইলে শেয়ার করবো। আর আপনি চাইলে পিডিএফ/অডিও বুক চেয়েও আমাকে মেইল করতে পারেন।

Shemanto Sharkar
স্কিল ডেভেলপমেন্ট আর আমার পড়া নন-ফিকশেন বইগুলো নিয়ে লিখা আর্টিকেল আমার ব্লগে পড়তে পারেন। শউনতে পারেন আমার পডকাস্ট Mixedtape.io তে।

পডকাস্ট,ব্লগ রিলেটেড যেকোন গঠনমূলক মন্তব্য বা প্রশ্ন থাকলে ইনস্টাগ্রম পোস্টের/ব্লগের নিচে কমেন্ট করতে পারেন করতে পারেন,আপনাদের সাহায্য করতে পারলে এই ব্লগ লিখা সার্থক। সবাই ভাল থাকবেন। May peace be upon you. 🚩আমার লাইফের রিয়েল-টাইম আপডেট পেতে ফলো করতে পারো ইন্সট্রাগ্রামে: https://www.instagram.com/shemanto_sharkar/

🤝Support my blog: ব্লগের কন্টেন্ট এবং টেলিগ্রাম চ্যানেল যদি আপনার লাইফে কিছুটা হলেও ইম্পেক্ট ফেলে থাকে তবে আপনি চাইলে এক কাপ কফি কিনে আমাকে সাহায্য করতে পারেন,এতে করে আমি আমার ব্লগ এড ফ্রি ভাবে চালিয়ে যেতে পারবো-



Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad

বিশেষ ছাড়ে ডিজিটাল প্রোডাক্ট কিনতে এখানে ক্লিক করুন!!

Shemanto Sharkar