Translate in Your Language

০০।পাইথন প্রোগ্রামিং - শুরুর প্রস্তুতিঃ পাইথন কী ও কেন শিখব,Compiler,IDE,মোবাইলে কোডিং

 


পাইথন কী?

বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ভাষার মধ্যে পাইথন হচ্ছে অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ভাষা। পাইথন ব্যবহার করে ওয়েব, মোবাইল, ডেস্কটপ ইত্যাদি প্ল্যাটফর্মের জন্য সফটওয়্যার তৈরি করা যায়। মেশিন লার্নিং (Machine Learning) ও ডেটা সায়েন্স (Data Science) ক্ষেত্রেও পাইথন অনেক জনপ্রিয়। আর প্রোগ্রামিং শেখাকে সহজতর করার জন্যও পাইথন ব্যবহার করা হচ্ছে অনেক জায়গায়।

পাইথন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ তৈরি করেন গুইডো ভন রুযাম (Guido van Rossum)। ১৯৮৯ সালে পাইথন তৈরির কাজ শুরু হয়, এখনও পাইথন নিয়মিত হালনাগাদ হচ্ছে এবং এর বিভিন্ন সংস্করণ (ভার্সন) প্রকাশিত হচ্ছে। বর্তমানে পাইথনের দুটি ভার্সন প্রচলিত আছে, ২.০ সিরিজ ও ৩.০ সিরিজ।

পাইথন নামকরন অজগরের নামে করা হয়েছে মনে হলেও প্রকৃতপক্ষে গুইডো তার প্রিয় কৌতুক অভিনেতা “মন্টি পাইথন” এর নামে পাইথনের নামকরন করেন।

পাইথনের ব্যবহার

পাইথন “GUI” অ্যাপ্লিকেশন, গেম ডেভেলপমেন্ট, ওয়েব স্ক্র্যাপিং,  মলিকুলার বায়োলজি, ডিপ লার্নিং, ডাটা সায়েন্স, মেশিন লার্নিং, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং সহ প্রায় সব ক্ষেত্রেই পাইথন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহৃত হয়।

পাইথনের “GUI” টুলকিটের মধ্যে “টার্টল”, “টিকইন্টার”, “ ডব্লিউ এক্স-পাইথন” ইত্যাদি জনপ্রিয়। ওয়েব অ্যাপ ডেভেলপমেন্টের জন্য “ফ্লাস্ক”, “জ্যাঙ্গো”, “পিরামিড”, “টরেন্টো” ইত্যাদি ওয়েব ফ্রেমওয়ার্ক ব্যবহৃত হয়।

গেম ডেভেলপমেন্টের জন্য “পাইগেম”, ওয়েব স্ক্র্যাপিং এর জন্য “স্ক্র্যাপি”, “বিউটিফুল সুপ” ব্যবহৃত হয়। এছাড়া ডিপ লার্নিংয়ের জন্য “কেরাস”, ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং এর জন্য “NLTK”, মলিকুলার বায়োলজির জন্য “বায়ো পাইথন”, ডাটা সায়েন্স, মেশিন লার্নিং এর জন্য “টেন্সরফ্লো”, “পান্ডাস”, “নাম-পাই” এর মত অনেক লাইব্রেরী ফাংশন, ফ্রেমওয়ার্ক, মডিউলের বিশাল ভান্ডার আছে।

প্রোগ্রামিং শুরু করতে প্রথমেই জানতে হবে Compiler এবং IDE সম্পর্কে। Compiler এবং IDE দুইটা আলাদা জিনিস।

Compiler কি?

Compiler আমাদের লেখা প্রোগ্রামকে (source code) মেশিন কোডে কনভার্ট করে। অর্থাৎ, কম্পাইলার আমাদের কোড পুরোটা আগে চেক করে কোনো ভুল আছে কি না। ভুল থাকলে এরর দেখায় এবং কোড কাজ করে না। আর ভুল না থাকলে মেশিনকোডে ট্রান্সলেট করে। 

মেশিনকোড আসলে কম্পিউটারের মাতৃ ভাষা। যেখানে 0 এবং 1 ছাড়া আর কিছুই নেই।

IDE কি?

IDE এর পূর্ণরূপ Integrated Development Environment.

কোড লেখার জন্য আমাদের একটা টেক্সট এডিটর প্রয়োজন অর্থাৎ যেখানে কোড লিখবো আর প্রয়োজন একটি কম্পাইলার। IDE তে টেক্সট এডিটর আর কমপক্ষে একটা কম্পাইলার থাকে। এটা একটা কম্পিলিট টুলস, যেটা দিয়ে আমরা আমাদের কোড লেখা বা কোডকে এডিট, সেভ, ডিবাগ, জেনারেট, ইন্টিগ্রেট করতে পারি। এক কথায় IDE হল একটি সফটওয়্যার, যেখানে কোড লিখা হয়, কম্পাইল করা হয় এবং এক্সিকিউট করা হয়।

IDE তে কোড লেখার সময় কোড অটো কমপ্লিশন সাজেশন দেয়া থাকে। ফলে কোড লেখা আরো সহজসাধ্য করতে IDE। এছাড়া কোডে ভুল থাকলে IDE সেটা চিহ্নিত করে দেয় এবং Debugging ও করতে পারে। সহজ কথায় IDE  আমাদেরকে প্রোগ্রামিং করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ধরনের Environment তৈরি করে দেয়। তাই এর নাম Integrated Development Environment । 

পাইথন প্রোগ্রামিং শেখা বা কোডিং প্র্যাকটিস করার জন্য বেশ অনেক রকমের কম্পিউটার সফটওয়্যার (IDE) এবং মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে। এছাড়া অনলাইনেও যে কোন ব্রাউজার ওপেন করে সেখানে কোডিং করতে পারো। সেক্ষেত্রে তোমার শুধু নেট কানেকশন থাকলেই চলবে। তবে কোন একটি IDE ইন্সটল করে সেখানে কোড করার সুবিধা বেশি। এতে অফলাইনে কোডিং করতে পারবে। নিচে এই তিনটি ক্যাটাগরি নিয়েই আলোচনা করা হলো।

কম্পিউটারে পাইথন কম্পাইলার / IDE ইনস্টল করা

পাইথন প্রোগ্রামিং করার জন্য Pycharm, Visual Studio Code, Jupiter Notebook এগুলো হল উইন্ডোজের জন্যে জনপ্রিয় কিছু IDE। 

 Pycharm ডাউনলোড করতে এই লিংকে ক্লিক করে ডাউনলোড বাটন ট্যাব করো। সব থেকে লেটেস্ট ভার্সন পেয়ে যাবে এখানে। প্রফেশনাল ভার্সন আর কমিউনিটি ভার্সন নামে দুটো আলাদা ভার্সন পাবে। যার মধ্যে কমিউনিটি ভার্সন ফ্রি। আমাদের কাজের জন্য এটাই যথেষ্ট।

ডাউনলোড হলে ফাইলটি run with administrator দিয়ে ওপেন করো। এবার চোখ বন্ধ করে সামনে যা কিছু আসবে সবকিছুতেই Next, I Agree, Install এগুলো দিয়ে দিয়ে ইনস্টলেশন সম্পন্ন করো।

কম্পিউটারে কোনো IDE ইন্সটল করা ছাড়াই অনলাইনে যেভাবে কোড করবে

তোমার যদি পাইথন প্রোগ্রামিংয়ের জন্যে কোন IDE ইন্সটল না করে থাকেন, চাইলে অনলাইনেও কোডিং প্র্যাকটিস করতে পারবে। সেক্ষেত্রে  কোনো ব্রাউজার ওপেন করে এই লিংকে গেলেই পাইথন প্রোগ্রামিংয়ে অনলাইন কোডিং করার এনভারনমেন্টটি পেয়ে যাবে। তবে তোমার প্রয়োজন হবে ইন্টারনেট কানেকশন।  

মোবাইলে কোডিং করার IDE

তোমার যদি পিসি না থাকে বা পিসির একসেস ঝামেলা মনে হয় তাহলে চিন্তার কিছু নেই। তুমি চাইলেই মোবাইলে কোন একটি অ্যাপ ডাউনলোড করে সেখানে কোড লিখতে পারবে। পাইথন প্রোগ্রামিং এ কোডিং করার জন্য বেশ কিছু জনপ্রিয় মোবাইল অ্যাপ রয়েছে। এদের মাঝে Pydroid , Qpython, Learn python, Programming Hub অন্যতম। এখানে অফলাইন বা অনলাইন দু’ভাবেই কোডিং প্র্যাকটিস করতে পারবে। প্লে স্টোর থেকে সার্চ করে মোবাইলে ডাউনলোড করে নিতে পারবে। 

এছাড়া মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে তুমি চাইলে পাইথন প্রোগ্রামিং শিখতেও পারবেন। এরকম কিছু অ্যাপের মধ্যে Programming Hub, Learn Python, Programming Hero অন্যতম। এখানে কিছু মজার ফিচার আছে যেত তোমাকে উৎসাহিত করবে আর নির্দিষ্ট কোর্সটি শেষ করলে, তোমাকে একটি সার্টিফিকেটও দেওয়া হবে। তাই ঘুরে আসতেই পারো একবার।

এই ব্লগের প্রতিটি চ্যাপ্টারে কোড লিখার সময় অনলাইন IDE অলরেডি যুক্ত করে দেয়া আছে।তোমরা চাইলেই সেই কোডটি মুছে নিজেই কোড লিখতে পারবে আবার Run করে কোডের আউটপুটও দেখে নিতে পারবে!

🚩আমার লাইফের রিয়েল-টাইম আপডেট পেতে ফলো করতে পারো ইন্সট্রাগ্রামে: https://www.instagram.com/shemanto_sharkar/ 🤝Support my blog: ব্লগের কন্টেন্ট এবং টেলিগ্রাম চ্যানেল যদি আপনার লাইফে কিছুটা হলেও ইম্পেক্ট ফেলে থাকে তবে আপনি চাইলে এক কাপ কফি কিনে আমাকে সাহায্য করতে পারেন,এতে করে আমি আমার ব্লগ এড ফ্রি ভাবে চালিয়ে যেতে পারবো-



Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad

বিশেষ ছাড়ে ডিজিটাল প্রোডাক্ট কিনতে এখানে ক্লিক করুন!!

Shemanto Sharkar